গর্ভকালীন সমস্যা ও স্ত্রী রোগ

গর্ভাবস্থার প্রতি সপ্তাহ: সপ্তাহ ১৫

এই সপ্তাহে শিশুর “টেস্ট বাড” বা স্বাদকুড়ি তৈরি হয়৷ ফলে বিভিন্ন স্বাদের সেন্স তৈরি হয়৷ মুখমণ্ডল অনেকটাই গঠিত হয়ে যায়৷

লক্ষণসমূহ: 

  • নাক বন্ধ হয়ে যাওয়া৷ বিভিন্ন হরমোনাল পরিবর্তন এবং মিউকাস মেমব্রেনে রক্ত পরিচলন বেড়ে যাওয়ার কারণে এমনটি ঘটে থাকে৷ একে “রাইনাইটিস অব প্রেগন্যান্সি” বলা হয়৷
  • নাক দিয়ে রক্তপাত হতে পারে৷ রক্তচাপ বেড়ে যাওয়া এবং নাকের রক্তনালির বড়ো হয়ে যাবার কারণে এমনটি হয়৷ এটা নিয়ে ভয়ের কিছু নেই৷
  • ‘হার্টবার্ন’ হওয়া৷ অর্থাৎ গলায় এবং বুকের নিচের অংশে জ্বালাপোড়ার মতো অনুভূতি হওয়া। 
  • দাঁতের মাড়ি ফুলে ওঠা৷
  • ওজন বেড়ে যেতে থাকা৷ 
  • খাবারের প্রতি আকর্ষণ ফিরে আসা৷ 
  • পেট ফাঁপা অনুভব করা৷ 
  • মুড সুইং।
  • মর্নিং সিকনেস৷ 

প্রেগন্যান্সি চেকলিস্ট:

  • নিয়ম করে হাঁটাহাঁটি এবং ব্যায়াম করুন৷ ইয়োগা করা একটা ভালো অপশন হতে পারে৷ 
  • আপনি এখন আপনার গর্ভকালীন সময়ের ২য় ট্রাইমেস্টারে আছেন৷ তবে অর্থনৈতিক বিষয় সম্পর্কে এবং প্রসবকালীন সময় নিয়ে আগে থেকেই ভেবে রাখুন৷ 
  • প্রসবকালীন বিপদচিহ্নগুলো সম্পর্কে ভালোভাবে জেনে রাখুন এবং এই চিহ্নগুলোর একটিও দেখা গেলে দ্রুত ডাক্তারের পরামর্শ নিন। 
  • সর্বাবস্থায় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকা৷
  • ভারী কোনো কাজ না করা৷
  • ক্যালসিয়াম জাতীয় খাবার বেশি করে খাওয়া৷
  • আয়রন যুক্ত খাবার খাওয়া৷
  • ভাজাপোড়া, ঝাল জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলা৷
  • বেশি করে পানি পান করা৷
  • কোনোরকম রাসায়নিক পদার্থের সংস্পর্শে না থাকা৷ যেমন–রং, রাসায়নিক দ্রব্যাদি ইত্যাদি। এসব আপনার শিশুর ক্ষতির কারণ হতে পারে।

https://www.babycenter.com/pregnancy/week-by-week/15-weeks-pregnant

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

সম্পর্কিত পোস্ট

আরও আরও...আর পাওয়া যায়নি.