গর্ভকালীন সমস্যা ও স্ত্রী রোগ

গর্ভাবস্থার প্রতি সপ্তাহ: সপ্তাহ ৩৬

আপনার গর্ভের শিশুর ওজন ক্রমেই বাড়ছে৷ আপনার শিশুর পজিশন কোনদিকে আছে সেটা জানার জন্য আল্ট্রাসাউন্ড করার দরকার হতে পারে৷

এ সময়ে আপনার কী কী করণীয় এবং আপনার শরীরে কী কী পরিবর্তন আসবে, চলুন তা জেনে নেই।

লক্ষণসমূহ:

  • ক্ষুধা কমে যেতে পারে৷ 
  • শ্বাসপ্রস্বাসের কষ্ট আগের চেয়ে কমে যেতে পারে।
  • তলপেটে চাপ বাড়তে থাকে৷ 
  • পেটে হঠাৎ করে টান পড়ার মতো অনুভূতি হওয়া৷ এটা সাধারণত ব্যথাহীন থাকে৷ 
  • চামড়ায় ফাটা দাগের মতো তৈরি হওয়া। 
  • পেট ফাঁপা৷ 
  • পাইলসের সমস্যা হওয়া৷ 
  • পায়খানা কষা হওয়া।  
  • ক্লান্তিভাব৷ 
  • বদহজম৷ 
  • দাঁতের মাড়ি ফোলা বা রক্তপাত হওয়া৷ 
  • যোনিপথে জীবাণু সংক্রমণ। 
  • যোনিপথে জ্বালাপোড়া৷ 
  • শরীরে ছোপ ছোপ দাগ হওয়া৷
  • বুকে, গলায় জ্বালাপোড়া হওয়া৷
  • জোরে কাশি, হাঁচি বা হাসলে প্রস্রাবের রাস্তা দিয়ে কিছু প্রস্রাব বের হতে পারে৷

প্রেগন্যান্সি চেকলিস্ট:

  • চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে পেলভিক ফ্লোর এক্সাসাইজ বা কোমরের ব্যায়াম করা যেতে পারে৷ 
  • প্রসব বেদনা ও প্রসবের প্রস্তুতি সম্পর্কে আপনার চিকিৎসকের নিকট জানুন৷ 
  • আপনার শীঘ্রই আগত সন্তানের জন্য সবরকমের প্রস্তুতি নিয়ে রাখুন৷
  • আপনার প্রসবকালীন সময়ের জন্য ঢিলেঢালা সুতি কাপড়, শুকনা খাবারের ব্যবস্থা করে রাখুন৷ 
  • উচ্চ রক্তচাপ এসময়ে একটি গুরুতর সমস্যা হিসেবে বিবেচিত হয়৷ তাই এমনটি হলে দ্রুতই চিকিৎসককে জানান৷ 
  • বেশি করে পানি পান এবং পুষ্টিকর খাবার খান৷ 
  • ভারী কোনো কাজ করবেন না৷ 

https://www.babycenter.com/pregnancy/week-by-week/36-weeks-pregnant

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

সম্পর্কিত পোস্ট

আরও আরও...আর পাওয়া যায়নি.