প্রচলিত রােগ ও সুরক্ষা

ঘাড় ব্যথার লক্ষণগুলো কী?

আমাদের ঘাড় খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ। ঘাড়ের হাড়, পেশি এবং লিগামেন্টসমূহ আমাদের মাথার ভার বহন করে এবং তার চলন নিয়ন্ত্রণ করে। এই অংশগুলোতে যেকোনো অস্বাভাবিকতা, প্রদাহ বা আঘাত হয়ে উঠতে পারে ঘাড় ব্যথার কারণ।

ঘাড়ের ব্যথার লক্ষণগুলোর তীব্রতা এবং স্থায়িত্বকাল এক এক রকম। প্রায়শই, ঘাড়ের ব্যথা সহনশীল পর্যায়ের হয় এবং মাত্র কয়েক দিন বা সপ্তাহ স্থায়ী হয়। আবার এটি দীর্ঘস্থায়ীও হতে পারে। তবে ঘাড়ের ব্যথা হালকা বা তীব্র যাইহোক না কেন–তা কিন্তু আমাদের দৈনন্দিন জীবনে প্রভাব ফেলে। 

ঘাড় ব্যথার নানানরকম লক্ষণ রয়েছে:

  • অনেকের ঘাড় ব্যথায় তাদের ঘাড় শক্ত বা আটকে যাওয়ার অনুভুতি হয়। এই অবস্থায় ঘাড়ের নড়াচড়াও সীমিত হয়।
  • অনেকের ক্ষেত্রে ব্যথাটি তীক্ষ্ণ বা “ছুরিকাঘাতের” ব্যথার মতো অনুভূত হয় ঘাড়ের যেকোনো একটি নির্দিষ্ট অংশে।
  • ঘাড়কে ওপরে নিচে, ডানে বায়ে ঘাড় নাড়াতে গেলে বা বাঁকালে ঘাড়ের ব্যথা তীব্রভাবে অনুভব হয়।
  • ঘাড়ের ব্যথা ছড়িয়ে যাওয়া অথবা অসাড়তা: ঘাড়ের ব্যথা আপনার মাথা, কাঁধ এবং বাহুতে ছড়িয়ে যেতে পারে। যদি আপনার ঘাড়ে ব্যথা কোনো স্নায়ুর জটিলতার জন্য হয় তাহলে আপনি  বাহু বা হাতে অসাড়তা, শিহরণ বা দুর্বলতা অনুভব করতে পারেন। এক্ষেত্রে ঘাড়ে একটি জ্বলন্ত বা তীক্ষ্ণ ব্যথার মতো শুরু হয় যা হাত পর্যন্ত ছড়িয়ে যায়। আপনি যদি এই উপসর্গটি অনুভব করেন তবে একজন ডাক্তারের সাথে দ্রুত পরামর্শ করুন।
  • ঘাড়ে ব্যথা শুরু হলে তা সার্ভিকোজেনিক মাথাব্যথা নামক মাথাব্যথাও তৈরি করতে পারে। মাথা ব্যথার সাথে ঘাড়ে ব্যথা মাইগ্রেনের মাথাব্যথার লক্ষণ হতে পারে।
  • অনেক সময় ডাক্তারের কাছে মেরুদণ্ড পরীক্ষা করার কারণেও ঘাড়ের ব্যথা বাড়তে পারে।

যদি আপনার ঘাড়ে ব্যথা থাকে যা এক সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে চলতে থাকে এবং গুরুতর হয় বা অন্যান্য উপসর্গের সাথে থাকে, তাহলে অবিলম্বে চিকিৎসার পরামর্শ নিন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

সম্পর্কিত পোস্ট

আরও আরও...আর পাওয়া যায়নি.