করােনা সংক্রান্ত তথ্য

করোনা প্রতিরোধে হাত ধোয়া–কখন আর কীভাবে

কখন হাত ধুতে হবে?

কোভিড-১৯ মোকাবিলায় হাত ধোয়ার ক্ষেত্রে বেশ কিছু পরামর্শ দিয়েছে জাতিসংঘের সহযোগী সংস্থা ইউনিসেফ। তারা বলেছে, নিন্মোক্ত কাজগুলোর পর আপনাকে অবশ্যই হাত ধুতে হবে।

–       নাক ঝাড়া, হাঁচি ও কাশি দেওয়ার পর,

–       গণপরিবহন, বাজার বা উপাসনালয়ের মতো জনসমাগমস্থল ঘুরে আসার পর,

–       ঘরের, বাইরের কোনো কিছু স্পর্শ করে, এমনকি টাকা ধরার পরেও,

–       কোনো অসুস্থ লোককে এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় নেওয়ার আগে, নেওয়ার সময় এবং নেওয়ার পরে,

–       খাওয়ার আগে ও খাওয়ার পরে।

গবেষকগণ বলছেন, করোনা প্রতিরোধে সাবান অধিক কার্যকরী। যেখানে সাবান বা হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে হাত ধোয়ার সুযোগ নেই, সেখানেই স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে হবে। হাতের তালুতে স্যানিটাইজারের কয়েক ফোঁটা নিয়ে ঘষা দিলেও ভাইরাস মরে যায় বলে বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন। 

হাত ধোয়ার নিয়ম:

সাধারণ হাত ধোয়া আর ভাইরাস থেকে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে হাত ধোয়ার মধ্যে কিছু পার্থক্য রয়েছে। সাবান বা হ্যান্ডওয়াশ হাতে মেখেই তা সঙ্গে সঙ্গে ধুয়ে ফেললে আপনি ভাইরাস থেকে সুরক্ষিত নাও থাকতে পারেন। এক্ষেত্রে কিছু উপায় বলে দিয়েছে ইউনিসেফ। সেগুলো হলো–

প্রথম ধাপ: প্রবাহমান পানি দিয়ে হাত ভেজানো।

দ্বিতীয় ধাপ: ভেজা হাতের পুরোটায় ভালোভাবে সাবান মাখানো।

তৃতীয় ধাপ: অন্তত ২০ সেকেন্ড হাতের সামনের ও পেছন ভাগ, আঙুলগুলোর মধ্যে ও নখের নিচের অংশ ভালোভাবে ঘষতে হবে।

চতুর্থ ধাপ: প্রবাহমান পানি দিয়ে পুরো হাত ভালোভাবে কচলে ধুয়ে নিতে হবে।

পঞ্চম ধাপ: পরিষ্কার কাপড় বা শুধু এককভাবে ব্যবহার করা হয় এমন তোয়ালে দিয়ে হাত মুছে নিতে হবে।

তাই সাবান, হ্যান্ডওয়াশ বা স্যানিটাইজার যা-ই হোক–নিজে ও অন্যদের নিরাপদ রাখতে স্বাস্থ্যবিধির এই অনুষঙ্গটি মেনে চলুন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

সম্পর্কিত পোস্ট

আরও আরও...আর পাওয়া যায়নি.