খাদ্য-পুষ্টি ও জীবনযাত্রা

এই গরমে সুস্থ থাকতে যা যা করবেন 

বৈশাখ মাস চলছে। ইতোমধ্যেই প্রচণ্ড তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন জেলার ওপর দিয়ে। কদিন পর হয়তো তাপমাত্রা বাড়বে আরও বেশি। তাই সুস্থ থাকতে এখন থেকেই প্রস্তুতি নেওয়া আবশ্যক। 

স্বাস্থ্যকর ও হালকা খাবার গ্রহণ করুন:

গরমে সুস্থ থাকতে চাইলে ভারী খাবার এড়িয়ে চলুন। খাদ্যতালিকায় যোগ করুন হালকা ও স্বাস্থ্যকর খাবার। একেবারে অনেক খাবার না খেয়ে

কিছু সময় পরপর অল্প করে খাওয়ার অভ্যাস করুন। ভারী খাবারে বেশি পরিমাণ কার্বোহাইড্রেট ও ফ্যাট থাকে যা দেহের তাপমাত্রা বাড়িয়ে দেয়।

এসবের পরিবর্তে খেতে পারেন সতেজ ফল ও সবজি যাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ পানি। কমলা, তরমুজ, টমেটো ইত্যাদি এক্ষেত্রে বেশ উপকারী।

চোখের সুরক্ষা বজায় রাখুন:

কাজের প্রয়োজনে ঘরের বাইরে বের হলে অতিরিক্ত সূর্যের আলো যেন চোখের ক্ষতি করতে না পারে সেদিকে খেয়াল রাখুন। চশমা ব্যবহার করলে

অতিবেগুনি রশ্মি থেকে প্রতিরক্ষামূলক চশমা ব্যবহার করুন। এমন সানগ্লাস পরুন যা অন্তত ৯৯% অতিবেগুনি রশ্মি থেকে চোখকে সুরক্ষিত রাখবে। 

মদ্যপান ও ক্যাফেইন এড়িয়ে চলুন:

মদ, ঠান্ডা পানীয় ও কফি দ্রুত শরীরকে ডিহাইড্রেট বা পানিশূন্য করে দেয়। পছন্দের হলেও তাই গরমে যতটা পারা যায় কফি বা ঠান্ডা পানীয় থেকে দূরে থাকুন।

বরং প্রচুর পরিমাণ পানি পান করুন। গরমে দেহের আর্দ্রতা বজায় রাখতে দিনে অন্তত ২ থেকে ৩ লিটার পানি পান করা উচিত। 

রাস্তার পাশের খাবার এড়িয়ে চলুন:

গরম এলেই রাস্তার পাশের বিভিন্ন খাবার বিশেষ করে শরবত, জুস খাওয়ার পরিমাণ বেড়ে যায়। এগুলো খাদ্যজনিত নানা রোগ যেমন–ডায়রিয়া, ফুড পয়জনিং,

বমি, জন্ডিস ইত্যাদির কারণ হয়। তাই এসব এড়িয়ে চলুন।

নিয়মিত গোসল করুন:

বাইরে থেকে ঘেমে এসে যত দ্রুত সম্ভব গোসল করে ফেলুন। কারণ দেহে ঘাম জমে ফাংগাল ইনফেকশন দেখা দিতে পারে। অনেকসময়, ঘাম বসে

গেলে জ্বর, সর্দি, কাশির মতো সমস্যাও দেখা দেয়।

আরামদায়ক পোশাক পরুন:

গরমে সুস্থ থাকতে চাইলে আঁটোসাঁটো পোশাক এড়িয়ে চলুন। সুতির নরম পোশাক গরমের জন্য আদর্শ। এসময় সিনথেটিক কাপড়ের পোশাক এড়িয়ে

চলাই ভালো। হালকা রঙের পোশাক পরলে গরমে আরাম পাওয়া যায়।

বেশিক্ষণ এসিতে একদমই নয়:

গরম লাগলেই এসি অন করে বসে থাকতে ভালোবাসেন? দীর্ঘসময়ের জন্য এ কাজটি না করাই ভালো। কারণ, এসির বাতাস দ্রুত ত্বক ও চুল রুক্ষ করে

দেয় যা বেশ ক্ষতিকর। এসিতে দীর্ঘক্ষণ থাকতে হলে অন্তত খেয়াল রাখুন ঘরের তাপমাত্রা যেন বাইরের তাপমাত্রার চেয়ে খব বেশি কম না হয়। তা না হলে

এসি থেকে বের হবার পর গরম লাগার পরিমাণ আরো বেড়ে যাবে।  

এসবের পাশাপাশি ত্বক ও দেহের যত্ন নিন। বাইরে বের হলে স্কার্ফ, ছাতা বা টুপি সঙ্গে রাখুন, ব্যাগে রাখুন পানি। রোদে পোড়া থেকে বাঁচতে ব্যবহার করতে পারেন

ভালোমানের সানস্ক্রিন লোশন। রূপচর্চায় রাখতে পারেন মুলতানি মাটি, টমেটোর রস, অ্যালোভেরার মতো উপাদান। 

এভাবেই ছোটো ছোটো পদক্ষেপ নিয়ে গরমে সুস্থ থাকুন, ভালো থাকুন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

সম্পর্কিত পোস্ট

আরও আরও...আর পাওয়া যায়নি.